মঙ্গলবার | ১২ নভেম্বর, ২০১৯

রাঙামাটিতে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর কাজে বাঁধা প্রদানের ঘটনায় দুটি মামলা, আটক ৩

প্রকাশঃ ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১০:১৮:২৩ | আপডেটঃ ১১ নভেম্বর, ২০১৯ ০৯:৫৯:০৮  |  ৭০৬৭
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটিতে গতকাল বুধবার চাঁদাবাজির আসামী আটকের সময় স্থানীয়দের বাঁধা দেয়ার ঘটনায় নাশকতা ও চাঁদাবাজির দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় গতকাল আটক ১১ গ্রামবাসীকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে থানা থেকে তাদেরকে ছাড়া হয় বলে জানায়, রাঙামাটির কোতোয়ালি থানা পুলিশ। পুলিশ জানায়, বিকালে ঘটনায় জড়িত মূল আসামি তিন জনকে আটক করে তাদের বিরুদ্ধে নাশকতা ও চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ তিন জনকে আদালতে চালান দেয়া হবে। তারা হলেন- সুরেশ চাকমা (৩০), তার স্ত্রী লাভলী রাণী নাথ (২৬) ও নয়ন মণি চাকমা (৩১)। রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সত্যজিৎ বড়–য়া রাতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।   

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর হামলার অভিযোগে ১১ জনকে আটক করা হলেও জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্তে তারা ঘটনায় জড়িত না থাকায় তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। মূল আসামি তিন জনকে আটক করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
 
বুধবার সন্ধ্যায় শহরের রাঙ্গাপানি এলাকায় চাাঁদবাজির অভিযোগে কয়েক জনকে আটকের চেষ্টাকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার এক পর্যায়ে এলাকাবাসীর সংঘর্ষ ঘটে। পরে রাতে ১১ গ্রামবাসীকে আটক করে কোতোয়ালি থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তারা হলেন- মালতি চাকমা (৩৫), শোভা চাকমা (৩৭), রূপেশ চাকমা (৪২), অজিত চাকমা (৪৭), অন্তিক দেওয়ান (৪৪), রিকু চাকমা (২৭), সুমন চাকমা (২১), বাবলি চাকমা (২৪), লক্ষী মণি চাকমা (৩৫), রূপনা চাকমা (৪০) ও রত্না চাকমা (৩৩)। বৃহস্পতিবার রাতে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

এদিকে আজ পুলিশবাদী হয়ে নাশকতার মামলায় ৬৩জনকে আসামী করে মামলা করে, এর মধ্যে এক নম্বর আসামী লাভলী রাণী নাথকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অপরদিকে চাঁদাবাজি মামলায় ৬জনকে আসামী করা হয়েছে এর মধ্যে  সুরেশ চাকমা ও নয়ন মণি চাকমাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions