সোমবার | ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

পর্যটকদের ভ্রমনের জন্য এখনো বন্ধ বান্দরবানের স্বর্ণ মন্দির

প্রকাশঃ ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০২:৫৯:১৭ | আপডেটঃ ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০২:০৮:৪১  |  ১২৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বান্দরবানের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র ও বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় স্থান বান্দরবানের বুদ্ধ ধাতু জাদি বা স্বর্ণ মন্দির। প্রতিদিনই এই স্বর্ণ মন্দিরের সৌন্দর্য্য উপভোগের জন্য ভীড় জমায় অসংখ্য পর্র্যটক,তবে এখনো বন্ধ রয়েছে এই স্বর্ণ মন্দির। আগস্ট মাসে লকডাউনের কারণে বান্দরবানের সব পর্যটনকেন্দ্রর সাথে এ বুদ্ধ ধাতু জাদি ও বন্ধ ছিল,তবে লকডাউন উঠে গেলে বান্দরবানের প্রশাসন থেকে সব পর্যটনকেন্দ্র খুলে দিলেও বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান বর্ষাবাস পালনের জন্য এই স্বর্ণ মন্দির এখনো পর্যটকদের ভ্রমনের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে।

বান্দরবানের স্বর্ণ মন্দির কর্তৃপক্ষ জানান, আষাঢ়ী পূর্ণিমা থেকে আশ্বিনী পূর্ণিমা পর্যন্ত এই তিন মাস বৌদ্ধদের কাছে অত্যন্ত সংযমের মাস। বর্ষাবাস যাপনকালে ভিক্ষুগণ প্রতিটি অষ্টমী,অমাবস্যা ও পূর্ণিমা তিথিতে নানাবিধ ধর্মীয় কর্ম সম্পাদন করেন। এ সময় তাঁরা প্রতিটি দিনে গৃহীদের কাছেও ধর্মদেশনা করেন এবং গৃহীদের শীলাদি প্রদানসহ ধর্মীয় জীবনাচারে উপদেশ প্রদান করেন। এই সময়টুকু বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অতিবাহিত করে বৌদ্ধধর্মাবলম্বীরা, তাই পর্যটক আগমনে স্বর্ণ মন্দিরের আচার অনুষ্ঠানের যাতে কোন ধরনের বিঘœ না ঘটে সেজন্য আগামী আরো ২মাস পর্যটকদের জন্য বন্ধ থাকবে বান্দরবানের এই স্বর্ণ মন্দির। আগস্টের ৩ তারিখ থেকে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের এ বর্ষাবাস শুরু হয় এবং এই বর্ষাবাস শেষ হবে আগামী নভেম্বর মাসের ৬ তারিখ।

বান্দরবানের মহাসুখ প্রার্থনা পূরক বুদ্ধ ধাতু জাদির দায়িত্বে থাকা উ গুণবদ্ধন পঞঞা মহাথের বলেন,  বান্দরবানের বুদ্ধ ধাতু জাদি (স্বর্ণ মন্দির) একটি বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান। এখানে প্রতিদিনই নানা ধরণের ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান উদযাপন করা হয়ে থাকে,তবে বান্দরবানে বেড়াতে আসা পর্যটকরা প্রায় সময়ই এই মন্দিরের সৌন্দর্য্য উপভোগ করার জন্য মন্দিরের বিভিন্ন অংশে ভ্রমনের সুযোগ নিয়ে থাকে। তিনি আরো জানান,ইতিপূর্বে আমরা পর্যটকদের এই মন্দির ভ্রমন করার সুযোগ দিলে ও এখন বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের বর্ষাবাস (ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান) শুরু হওয়ায় আমরা এখন পূজারী ব্যতিত কোন পর্যটককে মন্দিরের প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছি না।

তিনি আরো বলেন,বর্ষাবাস বৌদ্ধ ভিক্ষুসংঘের আত্মবিশ্লেষণাত্মক এবং অধিষ্ঠানমূলক শিক্ষাব্রতবিশেষ । এ সময় ভিক্ষুরা বিধিবদ্ধ শিক্ষা ও একান্ত ধ্যান সমাধির চর্চা করেন, এ ব্রত জীবনকে সত্যিকার মুক্তির পথে নিয়ে যায়। বুদ্ধের সময় থেকেই এ ব্রত পালন করা হয়ে আসছে। বুদ্ধদেব স্বয়ং রাজগৃহে অবস্থানকালে ভিক্ষুসংঘের জন্য এই বর্ষাবাস বিধান প্রবর্তন করেন। তিনি আরো বলেন, এই বর্ষাবাস শেষ হবে আগামী নভেম্বর মাসের ৬ তারিখ আর এর পরে আমরা বিহার কমিটি পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবো বুদ্ধ ধাতু জাদি বা স্বর্ণ মন্দির পর্যটকদের জন্য খোলা হবে না বন্ধ থাকবে।

বান্দরবানের বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ভ্রমনের সাথে সাথে প্রতিদিন এই স্বর্ণ মন্দিরের সৌন্দর্য্য উপভোগে দেশি ও বিদেশি অসংখ্য পর্যটকদের আগমন ঘটে জেলায়, তবে স্বর্ণ মন্দির সাময়িক বন্ধ থাকায় প্রতিদিনই শত শত পর্যটক এর সৌন্দর্য্য উপভোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

পর্যটন |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions