শনিবার | ২৪ জুলাই, ২০২১
খাগড়াছড়িতে

কল্পনা অপহরণের ২৫ বছর উপলক্ষে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশঃ ১১ জুন, ২০২১ ১১:১৬:৪৩ | আপডেটঃ ২৩ জুলাই, ২০২১ ১০:৫৭:২৯  |  ৩৪৫
সিএইচটি টুডে ডট কম ডেস্ক।  হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সস্পাদক কল্পনা চাকমা অপহরণের ২৫ বছর উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে আলোচনা সভা করেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন। আজ শুক্রবার (১১ জুন ২০২১) খাগড়াছড়ি সদর এলাকায় এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক নীতি চাকমার সভাপতিত্বে ও খাগড়াছড়ি জেলা আহ্বায়ক এন্টি চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)’র খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা সংগঠক প্রকাশ চাকমা, পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অমল ত্রিপুরা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক লিটন চাকমা প্রমুখ।

আলোচনা সভা শুরুতে কল্পনা অপহরণের বিচার দাবিতে শহীদ রূপন, সমর, সুকেশ, মনতোষসহ অধিকার আদায় লড়াইয়ে আত্মবলিদানকারী সকল বীর যোদ্ধাদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

সভায় ইউপিডিএফর সংগঠক প্রকাশ চাকমা বলেন, ১৯৯৬ সালের ১২ জুন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের তৎকালীন সাংগঠনিক সম্পাদক কল্পনা চাকমাকে সরকারি সংস্থার লোকজন  অপহরণ করে। দীর্ঘ ২৫ বছরে আমরা তার হদিস পাইনি। পার্বত্য চট্টগ্রামে নিপীড়নের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলেছে। কখনো ধরপাকড়, মিথ্যা মামলা-হুলিয়া দিয়ে নিপীড়ন জারি রেখেছে শাসকগোষ্ঠী।

তিনি আরো বলেন, যতদিন পর্যন্ত পূর্ণস্বায়ত্তশাসন কায়েম হবে না ততদিন পার্বত্য চট্টগ্রাম সমস্যার প্রকৃত রাজনৈতিক সমাধান হবে না।
হিল উইমেন্স ফেডারেশন নেত্রী নীতি চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে জাতিগত নিপীড়নের অংশ হিসেবে এযাবতকালে নারীদেরকে বেশি নিপীড়ন নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে। কল্পনা চাকমা অপহরণের ঘটনাও তার ব্যতিক্রম নয়।

কল্পনা চাকমা অপহরণের বিচার চেয়ে নীতি চাকমা আরো বলেন, আজ কল্পনা চাকমা অপহরণের ২৫ বছর অতিবাহিত হয়ে গেলেও সরকার এখনো তার হদিস দিতে পারেনি। তিনি অবিলম্বে চিহ্নিত অপহরণকারী ও তার গংদের বিচারের আওতায় এনে সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিচারকার্য পরিচালনা করার আহ্বান জানান।

পিসিপি নেতা অমল ত্রিপুরা বলেন, কল্পনা চাকমা এক প্রতিবাদী ও চেতনার নাম। তিনি ঘুনে ধরা সমাজ ব্যবস্থা ডিঙিয়ে রাজনৈতিক সংগঠনে সম্পৃক্ত হয়েছিলেন।

তিনি বিচার ব্যবস্থার দুর্বলতা তুলে ধরে বলেন, কল্পনা অপহরণের বিচারের ক্ষেত্রে সরকারের গাফিলতি রয়েছে। এযাবত ৩৯ জন তদন্ত কর্মকর্তা ঘটনাটি তদন্ত করলেও তারা কেউই নিরপেক্ষভাবে তদন্তকার্য পরিচালনা করেনি। বরাবরই অপরাধীদের রক্ষায় তারা চেষ্টা চালিয়েছে। ফলে ২৫ বছরেও কল্পনা চাকমা আহরণের বিচার হয়নি।

তিনি বলেন, নারীরা যুগে যুগে সমাজ ও জাতীয় মুক্তির ক্ষেত্রে অবদান রেখেছিল। কৃষি বিপ্লব শুরু হয়েছিল নারীদের হাত ধরে। এজন্য কল্পনা চাকমার মতো প্রত্যেক নারীকে তার উত্তরসূরী হওয়ার আহ্বান জানান।



খাগড়াছড়ি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions