বৃহস্পতিবার | ১৮ অক্টোবর, ২০১৮

রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্টের সাধারন সম্পাদক নির্বাচনকে ঘিরে মর্যাদার লড়াইয়ে নেমেছে আওয়ামীলীগ

প্রকাশঃ ২৮ মার্চ, ২০১৮ ০৮:০১:৪১ | আপডেটঃ ১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:১৫:৩৭  |  ৫৮

সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। আর্ন্তজাতিক মানবতবাদী সংগঠন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। আর্ত মানবতার সেবায় কাজ করলেও রাঙামাটি জেলার নির্বাচিত কমিটিকে মেয়াদের শেষ সময় এসে দায়িত্ব  ও কার্যক্রম পালনে অক্ষমতার অভিযোগ এনে কার্যকরী কমিটি বাতিল করে কেন্দ্র থেকে গত বছরের ৫ অক্টোবর ৩ মাসের জন্য এডহক কমিটি গঠন করে। ৫ জানুয়ারী ২০১৮ এডহক কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সেটি আবার বাড়ানো হয়, এর মধ্যে ৩১ ডিসেম্বর নির্বাচিত কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যায়।  
পরে রাঙামাটি চেম্বার অব কর্মাসের সভাপতি বেলায়েত হোসেন ভুইয়াকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার করে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়। নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণার পর ৭টি পদের বিপরীতে সহ সভাপতি পদে হাজী কামাল উদ্দিন ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন, সাধারন সম্পাদক পদে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাহাফুজুর রহমান ও ছাত্র ইউনিয়ন নেতা সৈকত রঞ্জন চৌধুরী এবং সদস্য পদে ৬জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। এর মধ্যে সদস্য পদে একজনের মনোনয়ন পত্র বাতিল হওয়ায় ৫জন সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। সহ সভাপতি পদ থেকে অজ্ঞাত কারনে উপজেলা বিএনপির সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে যান জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক হাজী কামাল উদ্দিন। সাধারন সম্পাদক পদে কেউ মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার না করায় মাত্র একটি পদে লড়াই হবে কাল ৩০ মার্চ শুক্রবার।
জানা গেছে, বিগত কমিটিতে ব্যাক্তি দ্বন্দ্বে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও পদাধিকার বলে রেডক্রিসেন্ট জেলা ইউনিটের সভাপতি বৃষ কেতু চাকমা দলকে এবং রেড ক্রিসেন্টের ঢাকা অফিসকে তৎকালীন সময়ের কমিটি অযোগ্য ও কার্যক্রম ঠিকমত পরিচালনা করছে না এমনটি বুঝিয়ে দলীয় প্রভাব খাটিয়ে নির্বাচিত কমিটি বাতিল করে এডহক কমিটি গঠন করান। নির্বাচিত কমিটির সাধারন সম্পাদক এম, জিসান বখতেয়ার এডহক কমিটির বিরুদ্ধে আপীল করেন। জেলা যুবলীগের সভাপতি ও রাঙামাটি পৌরসভার মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে পরিচিত ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক নেতা জিসান বখতেয়ার ও ছাত্রদলের জেলা সভাপতি আবু সাদাৎ সায়েম। আওয়ামীলীগের একটি অংশ মনে করছে পৌর মেয়র এম, জিসান বখতেয়ার সাপোর্ট করছে এমন ব্যাক্তিগত রেশারেশি থেকে রেড ক্রিসেন্ট এখন দলীয় নির্বাচনে পৌছেছে। আবার আওয়ামীলীগের একটি অংশ মনে করছে এক সময়ের তুখোর ছাত্রলীগ নেতা মাহাফুজুর রহমান নানা কারনে ঝিমিয়ে পড়লেও রেড ক্রিসেন্ট নির্বাচনে যদি সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন তাহলে দলের বড় পদের জন্য তদবির করতে পারেন, এতে অন্যরা বঞ্চিত হবেন। নানা সমীকরনে আওয়ামীলীগের মধ্যে রয়েছে দ্বিধাদ্বন্দ্ব।

নির্বাচনে মেয়রের নিজস্ব প্রার্থী না থাকলেও  কেউ কেউ মেয়র পক্ষের লোকজনকে ঠেকাতে চান। সম্প্রতি বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চ প্রকাশ্যে দলের প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়েছেন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ। রেড ক্রিসেন্টের নির্বাচনকে অনেকটা মর্যাদার লড়াই হিসেবে নিয়ে দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে আওয়ামীলীগ।
সর্বোপরি দলের পাশাপাশি সামাজিক কর্মকান্ডে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মাহাফুজুর রহমানের যেমন রয়েছে অবস্থান তেমনি তরুন আরেক প্রার্থী ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক নেতা ও সংগঠক সৈকত রঞ্জন চৌধুরীরও রয়েছে ব্যাপক পরিচিতি।
রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট নির্বাচনে মোট ভোটার ৯৬৬জন, এর মধ্যে আজাবীন ৬৩২জন এবং বার্ষিক ৩৩৪জন। অভিযোগ উঠেছে এডহক কমিটি নিজেদের মত করে নির্বাচনী বৈতরনী পার হওয়ার জন্য নতুন করে ৩৩৪জনকে বার্ষিক সদস্য করেছে। আবার আশপাশে কেন্দ্র থাকা সত্বেও শহরের রির্জাব বাজারের শহীদ আব্দুল একাডেমীকে বেছে নেয়া হয়েছে, একজন প্রার্থী আপত্তি করা সত্বেও নির্বাচন কমিশন পুর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কেন্দ্র বহাল রেখেছে।
এডহক কমিটির বিরুদ্ধে অভিযোগকারি ও নির্বাচিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক এম.জিসান বখতিয়ার বলেন,গত ৫অক্টোবর ২০১৭ রেড ক্রিসেন্টের এডহক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটি ৩মাসের মধ্যে সকল দলের মতামতে একটি স্বতন্ত্র ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দেয়ার কথা। কিন্তু সেটি না করে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্টের নিয়মনীতি ভঙ্গ করে এক তরফা ভাবে দলীয় করনের মাধ্যমে নির্বাচন করতে যাচ্ছে এডহক কমিটি। রেড ক্রিসেন্টের গঠন তন্ত্র বিরোধী নির্বাচন হচ্ছে আগামী ৩০মার্চ। জেলা ইউনিট কমিটিতে ২জন নারী সদস্য রাখার কথা থাকলেও  এডহক কমিটি মনোনীত কোন সদস্য নেই। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি একটি আর্ন্তজাতিক প্রতিষ্ঠান এ প্রতিষ্ঠানে রাঙামাটিবাসী সকলের অধিকার রয়েছে। এ সংগঠনটিকে এখন তারা দলীয় করন হিসেবে ব্যবহার করছে। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক।
রেড ক্রিসেন্টের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সাদাৎ মো. সায়েম বলেন,গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচিত একটি কমিটিকে মিথ্যা অসত্য ভুয়াভিত্তিহীন অভিযোগ এনে ওই কমিটি বাতিল করে  জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একটি এডহক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ নিয়ে হাইকোর্টে মামলা হওয়ার পরে কোর্ট গত ৩১ ডিসেম্বর নির্বাচিত কমিটির পক্ষে সময়সীমা বেধে দেয়। সবকিছু মিলিয়ে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট রাঙামাটি শাখার এডহক কমিটির স্বেচ্ছাচারিতা ইতিহাসের কালো অধ্যায় হিসেবে থাকবে।
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির এডহক কমিটির আহবায়ক বৃষ কেতু চাকমাকে এ ব্যাপারে জানান জন্য বার বার ফোন করে হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি,১৯৯০ সালের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সাবেক ছাত্র নেতা ,১৯৮৩-৮৪ সালের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এবং বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা মো.মাহফুজুর রহমান সকলের দোয়া ও ভালবাসা নিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেন,  আমি কখনো মিথ্যা কথা বলিনি এখনো বলবো না। যারা এ বিষয়ে ষড়যন্ত্র করছে তারা তাদের ষড়যন্ত্র নিয়ে বসে থাকুক। আমি মানুষের ভালবাসা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি।
সাবেক ছাত্র ইউনিয়নের জেলা সভাপতি ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী সৈকত রঞ্জন চৌধুরী বলেন,অনেক বাঁধা বিপত্তির পরেও আমি সকলের ভালবাসা আর্শিবাদ দোয়া নিয়ে  নির্বাচন করছি এটাই আমার জন্য অনেক কিছু। পাশ ফেল পরের কথা। তবে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া বজায় থাকলে আমি বিপুল পরিমাণ ভোট পেয়ে বিজয়ী হব। কারন রাঙামাটির জনগণ আমাকে ভালবাসে। তিনি আরো বলেন,চার দিক থেকে যে ভাবে হুমকি ধমকিসহ বিভিন্ন প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে আমার জায়গায় অন্য কেউ হলে নির্বাচন ছেড়ে চলে যেত।
তবে নির্বাচনে জাল ভোটের আশংকা করে সব ভোটাদের সজাগ থাকার আহবান জানান।
রাঙামাটি চেম্বার অব কমার্সের  সভাপতি ও প্রধান নির্বাচন কশিশনার মো.বেলায়েত হোসেন ভুইয়া জানান, নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে, শুক্রবার সকাল ৯টায় ভোট গ্রহন শুরু হবে এবং ৪টায় ভোট গ্রহন শেষ হবে। নির্বাচন চলাকালে একজন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও  আইন শৃঙ্খলাবাহিনী মোতায়েন থাকবে।
নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন যারা: সভাপতি বাদে, সহ সভাপতি পদে হাজী কামাল উদ্দিন, সদস্য পদে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাওয়ালউদ্দিন,জেলা যুবলীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক সম্পাদক কামালউদ্দিন, জামায়াত সমর্থিত পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি ও সাংবাদিক মোহাম্মদ সোলায়মান,সাবেক জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও চিত্রশিল্পী রেজাউল করিম রেজা,বঙ্গবন্ধু প্রজন্ম লীগের জেলা আহ্বায়ক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা এনএম জাহাঙ্গীর।
আগামী ৩০ মার্চ শুক্রবার রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারন সম্পাদক পদটির  নির্বাচন প্রবীন ও তরুনের লড়াই শেষ পর্যন্ত কতুটুকু অবাধ সুষ্ঠ, দলীয় প্রভাবমুক্ত ও নিরপেক্ষ হয় সেটি দেখার অপেক্ষায় রাঙামাটিবাসী।


রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions