বুধবার | ২৯ জুন, ২০২২

বান্দরবান ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর উপ পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশঃ ২৫ মে, ২০২২ ০৬:৫৩:৪৯ | আপডেটঃ ২৮ জুন, ২০২২ ০৫:০৪:৩২  |  ২৭৬
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বিয়ের আশ্বাসে ২০১৯সাল থেকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে   বান্দরবান ইসলামিক ফাউন্ডেশ এর উপ-পরিচালক মীর মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ এর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক নারী।

সোমবার (২৩ মে) বান্দরবানের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ সাইফুর রহমান মামলাটি আমলে নিয়ে বান্দরবানের ট্যুরিস্ট পুলিশের ওসিকে মামলাটির তদন্তের নির্দেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাদীপক্ষের আইনজীবী দিপঙ্কর দাশ গুপ্ত বলেন, ‘ বান্দরবানের ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর উপ-পরিচালক এর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০(সংশোধিত ২০০৩) এর ৯(১)ধারা ও তৎসহ দন্ডবিধির ৫০৬ (২) ধারায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী এক নারী, বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে  বান্দরবানের ট্যুরিস্ট পুলিশের ওসিকে মামলাটির তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।’

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, অভিযোগকারী ওই নারী বান্দরবান ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ইসলামিক মিশনে এর আওতায় একজন সেলাই প্রশিক্ষক হিসেবে ২০১৪ সাল থেকে চাকুরী করে আসছে। ২০১৯ সালে অভিযুক্তের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। ২০১৯ সালের ৪ জুলাই বিকাল ৫টায় বাদীকে ডেকে বিয়ের আশ্বাসে অফিসে থাকা শয়নকক্ষে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর বান্দরবান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মীর মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ । আরো জানা যায়, ২০২২সালের ১০মার্চ পর্যন্ত বাদীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করে ওই কর্মকর্তা। পরে বাদীকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায় এবং বিষয়টি কাউকে জানালে বাদীকে প্রাণনাশেরও হুমকি দেয়, পরবর্তীতে ওই নারী ২৩ মে আদালতে এসে মামলা দায়ের করে।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বান্দরবান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মীর মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ বলেন ,“ আমার কার্যালয়ের বেশ কয়েকজন কর্মচারীর যোগসাজোশে আমার মান সম্মান ক্ষুণ করতে ওই নারী আমার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে,তবে ঘটনার সাথে আমি জড়িত নই। তিনি আরো বলেন, যেহেতু মামলা দায়ের হয়েছে সেহেতু আইনজীবির মাধ্যমে বিষয়টি আদালতে নিস্পত্তি করা হবে ”।


বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions