শুক্রবার | ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০
বান্দরবানে

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মহাসপ্তমী পূজা : করোনা আর বৃষ্টিতে ম্লান আনন্দ

প্রকাশঃ ২৩ অক্টোবর, ২০২০ ০৪:৩৪:৩৮ | আপডেটঃ ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৪:৫৯:৪৮  |  ১৫১
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। সারাদেশের মত পার্বত্য জেলা বান্দরবানেও অনুষ্ঠিত হচ্ছে সনাতন ধর্মালম্বীদের শারদীয় দুর্গোৎসব। ২১ অক্টোবর পঞ্চমী পূজার মধ্য দিয়ে শুরু হয় এই উৎসবের , যথাক্রমে বোধন আর ষষ্ঠী শেষে আজ মহাসপ্তমী পূজা চলছে।

মন্ডপে আধিষ্ঠিত দেবী দুর্গা ,তার চরণতলে আয়না। আয়না দেবীর প্রতিবিম্ব এনে বিশেষ প্রক্রিয়ায় দেবীকে করানো হচ্ছে স্নান। স্নান শেষে দেবীকে নয়টি রূপে কল্পনা করা ও স্থাপন করা হয় নবপত্রিকা। উৎসবের এমন রূপে শুক্রবার বান্দরবানের ৩০টি মন্ডপে শুরু হয় মহাসপ্তমীর আনুষ্ঠানিকতা।

নানা আচার অনুষ্ঠান সেরে সকালে শুরু হয় সপ্তমী পূজা। মায়ের আর্শীবাদ নিতে মন্ডপে মন্ডপে ভীড় করছে ভক্তারা। এসময় মায়ের উদ্দেশ্য ধূপকাটি আর মোমবাতি জ্বালানোর পাশাপাশি জাগতিক সু:খ শান্তি লাভের আশা করে ভক্তরা,তবে  বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস আর দুইদিনের অনবরত বৃষ্টিতে পূজার আনন্দ অনেকটাই ম্লান হয়ে গেছে বলে জানান ভক্ত ও আয়োজকেরা।

বান্দরবান কেন্দ্রীয় মন্দিরের দুর্গাপূজার সপ্তমীতে আসা পূজারী রুমা দাশ বলেন,আমরা এবারে ভালোভাবে পূজার আনন্দ উপভোগ করতে পারছি না। প্রতিবছর এসময়টা নতুনজামা পড়ে এক পূজামন্ডপ থেকে আরেক মন্ডপে ঘুরতাম আর পূজা উদযাপনের পাশাপাশি
বিভিন্নভাবে আনন্দ ভাগাভাগি করতাম ,তবে এবার নানা বাঁধায় পূজার আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে।

বান্দরবান কেন্দ্রীয় দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি লক্ষীপদ দাশ বলেন, প্রতিবছর বান্দরবানে জাঁকজমকভাবে দুর্গাপূজা উদযাপন হলে ও এবারে বৈশ্বিক মহামারি করোনা আর প্রাকৃতিক অবস্থা ভালো না থাকায় আমরা বিভিন্ন প্রতিকুল অবস্থা মোকাবেলা করে মায়ের আগমনকে সানন্দে গ্রহণ করেছি এবং পূজার জন্য যা যা করণীয় আমরা তা করে যাব।

এদিকে সনাতন ধর্মালম্বীদের দুর্গাপূজা যাতে নির্বিঘ্নে ও সুষ্ঠভাবে উদযাপন করা যায় আর তার পাশাপাশি সরকারি স্বাস্থ্যবিধি যাতে সবাই মেনে চলে তার জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানান বান্দরবানের পুলিশ সুপার। পুলিশ সুপার জেরিন আখতার বলেন,আমরা সনাতন ধর্মালম্বীদের এবারের পূজা উদযাপন করার জন্য বান্দরবানের ৩০টি পূজামন্ডপে পর্যাপ্ত পুলিশের ব্যবস্থা করেছি এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা যাতে ভালো রাখা যায় তার জন্য পুলিশের পাশাপাশি প্রতিটি পূজামন্ডপের স্বেচ্ছাসেবক ও কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠক করেছি।

২৬ অক্টোবর দশমী পূজার পর অঞ্জলি শেষে বিসর্জন হবে দেবী দুর্গা, আর এই বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি হবে সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয়া দুর্গোৎসবের।

বান্দরবান |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions