শনিবার | ২২ জুন, ২০২৪
রুমা ও থানচি ব্যাংক ডাকাতি

বান্দরবানের কেএনএফ এর ১২জন নতুন করে রিমান্ডে

প্রকাশঃ ০৯ জুন, ২০২৪ ০৫:৩৮:৫৬ | আপডেটঃ ২১ জুন, ২০২৪ ০৭:৪৬:২৪  |  ২১৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। বান্দরবানের রুমা ও থানচি সোনালী ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতির মামলার সন্দেহভাজন পার্বত্য চট্টগ্রামের সশস্ত্র সংগঠন কুকি চীন ন্যাশন্যাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) এর ১ নারী সদস্যসহ ১২সহযোগীর নতুনভাবে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

রোববার  (০৯ জুন) দুপুর ১টায় থানচি ও রোয়াংছড়ি থানার মামলার ১৩ আসামীকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে প্রিজন ভ্যানে করে জেলা কারাগার থেকে বান্দরবান চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আনা হয়।

পরে পুলিশ আদালতের কাছে আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫দিনের রিমান্ড আবেদন করে। এসময় আসামী পক্ষের উকিলের সাথে দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালাত রুমা ও থানচি থানায় মামলার আসামী আকিম বমকে ৩টি মামলায় একদিন করে ৩দিন জেল গেইটে জিজ্ঞাসাবাদ এবং রোয়াংছড়ি থানার মামলায় সান জুম খুম বমকে ১দিন জেল গেইটে জিজ্ঞাসাবাদ এবং রোয়াংছড়ি থানার মামলার ৪ আসামীকে ২দিন করে রিমান্ড আদেশ দেন। এসময় বাকী আসামীরা একাধিক মামলায় গ্রেফতার হওয়ার কারণে তাদের ৫দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নাজমুল হোসাইন।

বান্দরবান আদালতের পুলিশের উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) প্রিয়েল পালিত বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২এপ্রিল রাতে বান্দরবানের রুমা সোনালী ব্যাংকে ও পরে ৩এপ্রিল দুপুরে থানচি উপজেলার সোনালী ব্যাংক ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতি, হামলা ও টাকা লুটের ঘটনা ঘটে। এদিকে এই ঘটনার পরে আসামিদের ধরতে বান্দরবানে শুরু হয় যৌথবাহিনীর অভিযান আর অভিযানে র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি, আনসারের সঙ্গে সঙ্গে অংশ নিচ্ছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা।

এদিকে ঘটনার পর বান্দরবানের রুমা থানায় ১৩টি, থানচি থানায় ৪টি, বান্দরবান সদর থানায় ১টি এবং রোয়াংছড়ি থানায় ৩টি সহ সর্বমোট ২১টি মামলা দায়ের হয়। চলমান এই অভিযানে এই পর্যন্ত কেএনএফের ৯২ জন সদস্য ও সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে যৌথবাহিনী।

এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions