শনিবার | ২২ জুন, ২০২৪
বান্দরবানে

অশুভ শক্তিকে প্রতিরোধ করে সকলের মঙ্গল কামনায় নদী পূজা অনুষ্ঠিত

প্রকাশঃ ২০ এপ্রিল, ২০২৪ ০২:২৭:২২ | আপডেটঃ ২০ জুন, ২০২৪ ০৭:৩৮:১৩  |  ২১২
সিএইচটি টুডে ডট কম, বান্দরবান। যথাযথ ধর্মীয় ভাব গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে অশুভ শক্তিকে প্রতিরোধ করে সকলের সুখ শান্তি আর মঙ্গল কামনায় বান্দরবানের বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা পালন করেছে নদী পূজা।

শনিবার (২০ এপ্রিল) সকালে বান্দরবান রাজ পরিবারের আয়োজনে বর্ণাঢ্য এক শোভাযাত্রা বের করা হয়, শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে উজানী পাড়া সাংগু নদীর তীরে গিয়ে সমবেত হয়।

শোভাযাত্রায় বান্দরবান বোমাং রাজার পুত্র রাজকুমার চসিংপ্রæ বনির নেতৃত্বে রাজপরিবারের সদস্য, বিভিন্ন মৌজার হেডম্যান ও কারবারি (পাড়া প্রধান) সহ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী পূজারীরা অংশগ্রহণ করে।

পরে সাংগু নদীর তীরে বটগাছ এবং নদীর পানিতে পূজা করে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা। এসময় মিষ্টান্নসহ বিভিন্ন রকেমর ফল উৎসর্গ করার পাশাপাশি মোমবাতি ও ধুপ জ্বালিয়ে পূজারীরা দেশ জাতি ও সকলের মঙ্গল কামনা করেন।

এসময় নদীর কিনারে বাঁশের তৈরি মাচাংয়ের উপরে ফুল বিসর্জন করে দেবতার উদ্যাশে পূজা করা হয়। পুরাতন বছরের গøানি মুছে সকলে নতুন বছরে পৃথিবীতে সুখে-শান্তিতে বসবাসের জন্য বিশেষ প্রার্থনা মিলিত হয় শেষে।

প্রসঙ্গত: একসময় সবুজে ঘেরা বান্দরবানের পাহাড় পরিবেশে অশুভ শক্তি প্রভাব বিস্তার করতো, এতে পাড়ার বাসিন্দারা বিভিন্ন সময়ে নানা ধরনের রোগব্যাধিতে আক্রান্ত থাকতো। তাই আদিকাল থেকে পাড়াবাসী বিশ্বাস করে আসছে অশুভ শক্তির হাত থেকে রক্ষা পেতে নদী পূজা সকলের জন্য মঙ্গল বয়ে আনবে। আর তাই প্রতিবছরই বৈশাখ মাসে মারমা সম্প্রদায়ের নববর্ষ ও সাংগ্রাইং উৎসব শেষে বান্দরবান রাজপরিবারের পক্ষ থেকে এই নদী পূজার আয়োজন করা হয় আর বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা সকলে এই আয়োজনে সামিল হয়ে অশুভ শক্তির বিনাশ ঘটিয়ে সকলের মঙ্গল প্রার্থনা করে।


এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions