শুক্রবার | ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
খাগড়াছড়িতে দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের অসহায় ও দরিদ্র রোগীদের জন্য

সেনাবাহিনীর উদ্যোগে বিনামুল্যে চক্ষু চিকিৎসা শিবিরে ৪৮ জন রোগীর অপারেশন

প্রকাশঃ ১৬ অগাস্ট, ২০১৮ ১০:০৬:২৪ | আপডেটঃ ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০১:৫৫:০৮  |  ১৪৭
সিএইচটি টুডে ডট কম, খাগড়াছড়ি। জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে খাগড়াছড়ি জেলার দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের অসহায় ও দরিদ্র  রোগীদের জন্য দুইদিনব্যাপী বিনামুল্যে চক্ষু চিকিৎসা শিবিরের আয়োজন করেছে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন।
চট্টগ্রাম লায়ন্স চক্ষু হাসপাতালের সহযোগিতায় সেনাবাহিনীর ৫ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্স ( এমডিএস ) এ আজ বৃহস্পতিবার সকালে বাছাইকৃত ৪৮জন রোগীর অপারেশন করা হয়।
শরনার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি, রিজিয়ন কমান্ডার  ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল মোতালেব সাজ্জাদ মাহমুদসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ এ কার্যক্রম পরিদর্শন করেন এবং অপারেশনকৃত রোগীদের সাথে কথা বলেন।
খাগড়াছড়ি রিজিয়নের আয়োজনে ক্যান্টমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের হল রুমে এ উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। শরনার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।
সেনাবাহিনীর খাগড়াছড়ি রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার  ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল মোতালেব সাজ্জাদ মাহমুদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজুরী চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো: শহিদুল ইসলাম, শরনার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্স এর সাবেক চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পুলিশ সুপার আলী আহম্মদ খান,সিভিল সার্জন ডা:শাহ আলম,খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মো:রফিকুল আলম, চট্টগ্রাম লায়ন্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ক্যাপ্টেন (অব:) শফিক ভুইয়া, খাগড়াছড়ি সেনাবাহিনীর ৫ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্স ( এমডিএস ) এর ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লে কর্ণেল মিজানুর রহমান বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন মেজর মো: নাজমুস সালেহীন সৌরভ।
 তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি দরিদ্র অসহায় মানুষের জন্য মানবিক এ মহতী উদ্যোগের জন্য সেনা কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান এবং আগামী দিনেও এ কার্যক্রম অব্যাহত রাখার  আহবান জানান।
উল্লেখ্য যে, গত এপ্রিল থেকে বিভিন্ন জোনে প্রাথমিক পর্যায়ে রোগীদের বাছাই ও প্রয়োজনীয় পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে ৭২জন রোগীকে চুড়ান্তভাবে নির্বাচিত করা হয় এবং বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ঔষধ দেয়া হয়। তাদের মধ্য থেকে  ৪৮জন রোগীকে অপারেশনের আওতায় আনা হয়।           

খাগড়াছড়ি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions