লংগদুতে গৃহবধুকে ধর্ষনের অভিযোগে ৩ সহযোগিকে আটক, প্রধান আসামী পলাতক

প্রকাশঃ ২২ এপ্রিল, ২০১৯ ০৮:১৪:৫৩ | আপডেটঃ ১৮ জুন, ২০১৯ ০৮:৫৭:৩৩
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটির লংগদু উপজেলার ইয়ারিংছড়ি এলাকায় এক গৃহবধুকে জ্বিনের  আছরের মাধ্যমে স্বামীকে ফেরত আনার কথা বলে শরবত খাইয়ে ধর্ষন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভিকটিমের অভিযোগের ভিত্তিতে লংগদু থানা পুলিশ ৪জন আসামীর মধ্যে সহযোগীতা করার অভিযোগে ৩জনকে আটক করেছে।

জানা গেছে, ভিকটিমের স্বামী পারিবারিক বিবাদের জের ধরে গত ২বছর যাবৎ স্ত্রীর সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রেখেছেন, গত ১৫ এপ্রিল স্বামীকে এনে দেয়ার কথা বলে উকিল শ্যালক নুর ইসলাম তার স্ত্রী আয়েশা খাতুন এবং উকিল শাশুরী রাহেলা খাতুন তাদের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে জ¦ীনের আসরের মাধ্যমে ১ নম্বর আসামী ওসমান প্রকাশ কবিরাজ ওসমান ভিকটিমের স্বামীকে এনে দেয়ার কথা বলে রাতে নেশা করিয়ে অজ্ঞান করে ধর্ষণ করে। পরে ভিকটিম কাউকে যেন ঘটনা প্রকাশ না করে সে জন্য হুমকি দেয়। স্থানীয়দের সহায়তায় ভিকটিমের বাবা লংগদু থানায় মামলা করলে পুলিশ ধর্ষককে বাসায় জায়গা দিয়ে সহযোগিতার করার অপরাধে একই পরিবারের ৩জনকে গ্রেফতার করে। প্রধান আসামী ওসমান প্রকাশ কবিরাজ ওসমান পালিয়ে যায়।

আসামীদের আজ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট এমএন মোরশেদ আলমের আদালতে আনা হলে আদালত আসামীদের জেলহাজতে প্রেরন করে।   

রাঙামাটি জজ ও দায়রা আদালতের কোর্ট পরিদর্শক ইসরাফিল মজুমদার জানান, আসামীদের জেলে পাঠানো হয়েছে, তাদের কোন রিমান্ড চাওয়া হয়নি, ৩জন আসামীর মধ্যে একজন জবানবন্দি দিয়েছেন, বাকিদের পরবর্তী সময়ে গ্রহণ করা হবে।  

সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions