মঙ্গলবার | ০২ মার্চ, ২০২১

রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট নির্বাচন দলীয়করণ ও ব্যাপক জাল ভোটের অভিযোগ

প্রকাশঃ ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৭:৩১:২৭ | আপডেটঃ ০১ মার্চ, ২০২১ ১১:০৬:১৬  |  ৩৬০
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির নির্বাচন দলীয়করণ ও ব্যাপক জাল ভোট দেয়ার অভিযোগ করেছেন সাধারন সম্পাদক প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম মুন্না।

তিনি সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি রাঙামাটি জেলা ইউনিট এর ত্রি-বার্ষিক-২০২০ (২০২১-২৩) নির্বাচনে সেক্রেটারি পদে আমি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করি। মানব সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার ব্রত নিয়ে পরিবর্তনের লক্ষে সেক্রেটারি পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি। আজ ৪ ডিসেম্বর ২০২০খ্রি. শুক্রবার সকাল থেকে রাঙামাটি জেলা শহরের শহীদ আব্দুল আলী একাডেমি বিদ্যালয়ে নির্বাচন শুরু হবার পর থেকে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা কেন্দ্র দখল করে ব্যাপক অনিয়ম, দলীয় প্রভাব ও জাল ভোটের মাধ্যমে নিজেদের দলীয় মনোনীত প্রার্থীর জয় নিশ্চিত করতে একটি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার নির্বাচনকেও বিতর্কিত করেছে। রেড ক্রিসেন্ট সর্ম্পকে নূন্যতম কোন জ্ঞান নেই; এমন দলীয় অনুগতদের বার্ষিক ভোটারের পাশাপাশি একটি নির্দলীয় প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ করতে প্যানেল বানিয়ে সংঘবদ্ধ ভোট প্রদান করা হয়, নির্লজ্জভাবে ভোটারদের মাঝে বিতরণ করা হয় নিজস্ব প্রার্থী তালিকা। ন্যাক্কারজনকভাবে দলীয় প্রভাব ও জাল ভোট প্রদান করে এমন একটি আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সুনাম নষ্ট করেছে।

বিবৃতিতে আরো বলেন, সকালে ভোট শুরু হওয়ার পর থেকে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, রেড ক্রিসেন্ট রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রুবায়েত আক্তার (ভোটার নং-১৭), নুরুল আমিন (ভোটার নং-৭২), বাবুল কান্তি দে (ভোটার নং-১১৮), মো. আব্দুল মালেক (ভোটার নং-১৩৮), মো. আব্দুল মতিন (ভোটার নং-১৩৯), নিভানন চাকমা (ভোটার নং-১৪০), মো. আতাউর রহমান (ভোটার নং-১৯৪), নন্দন কানন মুৎসুদ্দী (ভোটার নং-২০৫), এসএম তারিকুজ্জামান (ভোটার নং-২১১), সুবর্ণ চাকমা (ভোটার নং-৯০), আবুল কামাল আজাদ (ভোটার নং-২৬৬),  নয়ন দাশ (ভোটার নং-৪৭৭), সুজন কুমার মহাজন (ভোটার নং-৪৯৪), তরুন মনি চাকমা (ভোটার নং-৫২৯), মো. শাহজাহান (ভোটার নং-২৬৭) সহ এমন আরো অসংখ্য আজীবন সদস্য যারা নানা কারণে ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত না হলেও তাদের নামে জাল ভোট প্রদান করা হয়েছে। পাশাপাশি বিগত ২০১৮ খ্রি. রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্ট এর বিতর্কিত নির্বাচনের মতো করে এই নির্বাচনেও বিভিন্ন উপজেলা থেকে বার্ষিক সদস্যের নাম করে নামে-বেনামে জাল ভোট প্রদান করা হয়। শুধুমাত্র নির্বাচনে নিজেদের জয় নিশ্চিত করার জন্য বার্ষিক সদস্য করা হয়। যাহা রেড ক্রিসেন্ট এর মূল লক্ষ্যের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এমন ব্যাপক অনিয়ম, নির্লজ্জ, দলীয়করণ ও জাল ভোট প্রদানের নির্বাচনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

বিবৃতি জাহাঙ্গীর আলম মুন্না আরো বলেন, রেড ক্রিসেন্টকে দলীয় প্রভাবমুক্ত ও নির্দলীয় মানব সেবায় নিয়োজিত রাখার জন্য এমন বিতর্কিত নির্বাচনের ফলাফল ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করছি এবং সেই সাথে অনুরোধ করছি, ভবিষ্যতের নির্বাচনগুলোতে যেনো আজীবন সদস্যদের নিয়েই এই ভোট পরিচালিত হয়, নতুবা এবারের মতো ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী এই প্রতিষ্ঠানটি দলীয় পুনর্বাসন কেন্দ্রে পরিণত হবে, যা হবে অত্যন্ত দুঃখজনক।


রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions