শনিবার | ০৪ এপ্রিল, ২০২০
রাঙামাটিতে

শক্তিমান চাকমা হত্যার আসামী সেনাবাহিনীর সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত, অস্ত্র উদ্ধার

প্রকাশঃ ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ০৫:০৮:১৩ | আপডেটঃ ০৪ এপ্রিল, ২০২০ ০১:২৬:০৪  |  ২১৫৩
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটি সদর উপজেলার বন্দুকভাঙ্গার ইউনিয়নের সাক্রাছড়ি এলাকায় সেনাবাহিনীর সাথে সন্ত্রাসীদের বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হয়েছে। এসময় তার কাছ থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়। আজ ভোরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, আজ ভোরে রাঙামাটি জোনের আওতাধীন শুভলং ক্যাম্পের একটি নিয়মিত টইল নৌযানে করে বন্দুকভাঙ্গার মাইসছড়ি এলাকা দিয়ে টইল দেয়ার সময় পাহাড়ের উপর থেকে আগে ওত পেতে থাকা একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী এলোপাথারি গুলি বর্ষণ করে, এসময় নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা আত্নরক্ষার্থে পাল্টা গুলি বর্ষণ করে। ১৫/২০ মিনিট গোলাগুলির পর নিরাপত্তাবাহিনী সম্পুর্ণ এলাকা নিয়ন্ত্রনে নিয়ে তল্লাসি অভিযান পরিচালনা করে। এসময় ঘটনাস্থলে একজনের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে। মৃতদেহের সাথে একটি অত্যাধুনিক পিস্তল, একটি দেশীয় অস্ত্র, বেশ কিছু পিস্তলের গুলি, এলজির কার্তুজ এবং অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়।

নিরাপত্তাবাহিনী সুত্রে জানা যায়, স্থানীয়দের সাথে কথা বলে নিহতের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়। নিহতের নাম অর্পন চাকমা ওরফে বাবুধন চাকমা। সে ইউপিডিএফের কালেক্টর ও নানিয়াচর উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার অন্যতম আসামী। অর্পন চাকমা স্থানীয়দের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা তুলতো।

রাঙামাটি কোতয়ালী থানার এসআই আল আমিন জানান, তারা ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করেন। ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩ মে চাঞ্চল্যকর নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা হত্যাকান্ডের অন্যতম আসামী অর্পন চাকমা বলে জানা গেছে।

এদিকে এটি সাজানো নাটকে অর্পন চাকমাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউপিডিএফ।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions