রবিবার | ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯

কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের কার্যক্রম পরিদর্শন চেয়ারম্যানের

প্রকাশঃ ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০৪:০৫:৩০ | আপডেটঃ ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১১:০২:০২  |  ১৯৯
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের স্ট্রেনদেনিং ইনক্লুসিভ ডেভেলপমেন্ট ইন সিএইচটি (এসআইডি-সিএইচটি)-ইউএনডিপি’র বাস্তবাায়নে এবং ড্যানিডা’র অর্থায়নে পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্প (৩য় পর্যায়) এর প্রকল্পভুক্ত কৃষকদের আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ, মৎস্য চাষ, খামার’সহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) সকালে রাঙামাটির লংগদু উপজেলার ভাসান্যাদাম ইউনিয়নের চাইল্যাতলি মাস্টার পাড়ার প্রকল্পভুক্ত কৃষকদের কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে এক মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পের জেলা কর্মকর্তা সুকিরন চাকমা, সিএইচটি (এসআইডি-সিএইচটি)-ইউএনডিপি’র উপজেলা ফ্যাসিলিটেটর জয় খীসা’সহ প্রকল্পের উপকারভোগীরা।  
সভায় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, বর্তমান সরকারের কৃষিক্ষেত্রে গৃহীত উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফলে আজ কৃষির প্রত্যেকটি খাতে আমুল পরিবর্তন হয়েছে। ফসল, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রত্যেকটি খাতে উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জিত হওয়ায় এখন এ দেশের কৃষক কেবল খাদ্য নিরাপত্তা নয় বরং পুষ্টি নিরাপত্তা বিধানের লক্ষ্যে দেশ ক্রমে এগোচ্ছে। দেশ যেভাবে এগিয়ে চলেছে আমাদেরকেও সেভাবে এগিয়ে যেতে হবে ।

তিনি আরো বলেন, পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসরত কৃষকদের কল্যানে বর্তমান সরকার বেশ কিছু যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তার মধ্যে এই কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা প্রকল্পটি। এর ফলে কৃষক, খামারীরা আধুনিক প্রযুক্তির ব্যাবহার ও বিভিন্ন উন্নত এবং সঠিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করে খাদ্য উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে এবং জেলার চাহিদা মিটিয়ে অন্যান্য জেলায় রপ্তানি করে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হবে বলে আমার
বিশ্বাস।

পরে প্রকল্পের আওতাভুক্ত কৃষকদের উন্নয়নে জেলা পরিষদ হতে কৃষি সরঞ্জামাদি ও আর্থিক সহায়তা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দেন পরিষদ চেয়ারম্যান।  

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions