বুধবার | ২৯ জুন, ২০২২

রাঙামাটিতে তিন পার্বত্য জেলার ৩টি আর্মড ব্যাটালিয়েনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন

প্রকাশঃ ২৬ মে, ২০২২ ১১:৪৪:১৫ | আপডেটঃ ২৮ জুন, ২০২২ ০৫:৪৬:০৬  |  ৪৪৩

সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, আমাদের টার্গেট হলো বাংলাদেশে আমরা কোন চাঁদাবাজি করতে দিব না বাংলাদেশে আমরা কোন রক্তপাত হতে দিব না কেন এই তিন জেলায় রক্তপাত হবে? এই ভালো মানুষগুলো নিহত হবে আপনাদের (পাহাড়ের) প্রত্যেক জেলায় আমি গ্রামে গ্রামে ঘুরেছি, অনেক সাদাসিধে মানুষ আপনারা কোন ডিমান্ড নেই আপনারা অত্যন্ত শান্তি প্রিয় মানুষ তাহলে কেন এই রক্তপাত- সেটাই জিজ্ঞাসা আপনাদের কাছে আমরা ওয়াদা করছি, পুলিশ বাহিনী আপনাদের পাশে থাকবে আপনারা যে যেভাবে পারুন প্রতিরোধ করুন, সন্ত্রাসীদের চিহ্নিত করে আমাদের জানান

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে (২৬ মে) রাঙ্গামাটির শহরের সুখীনীলগঞ্জ পুলিশ লাইনসে ডিআইজি আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নস্ (পার্বত্য জেলাসূমহ) তিন পার্বত্য জেলায় তিনটি আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেছেন এদিন সকাল দশটায় ব্যাটালিয়নের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উদ্বোধন করা হয় পরে আলোচনা সভায় অংশ নেন অতিথিরা

 

সভায় মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা অবশ্যই সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ; যারা নামে-বেনামে চাঁদাবাজি করছে, রক্তপাত করছে তাদের আইনের মুখোমুখি করব এটাই আমাদের ওয়াদা তাদের আইনের মুখোমুখি হতে হবে আইন অনুযায়ী শাস্তি পেতেও হবে এই তিন জেলা অফার সম্ভাবনার জায়গা পাহাড়ের কাজু বাদামের সফলতা দু-এক বছরের মধ্যে দেখতে পারবেন এই যে সফলতার দেশ, শান্তি প্রিয় মানুষগুলোর দেশ; এখানে কেন রক্তপাত কেন তাই আমাদের সরকারিভাবে যা করণের আমরা করছি

 

অনুষ্ঠানে জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ আক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, রাঙ্গামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, চাকমা সার্কেল চিফ দেবাশীষ রায়, সেনাবাহিনীর ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল সাইফুল আবেদীন এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) . বেনজীর আহমেদ

 

জনপ্রতিনিধিদের কথা উল্লেখ করে আসাদুজ্জামান খান বলেন, এখানকার তিন এমপি এবং আরও যারা আসছেন- সবারই এক কথা এগুলা বন্ধ করতে হবে সবাই যখন চাচ্ছেন, আশাকরি আমরা অবশ্যই সফল হব সফল হতেই হবে আমরা পৃথিবীকে দেখিয়ে দিয়েছি আমরা অনেক কিছুই পারি আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চান তিন জেলাটা সুন্দর, শান্তি-শৃঙ্খলা হোক, আপনারাও চান তাহলে হবে না কেন আপনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন এখন শুনছি আমাদের বাঙালি ভাইয়েরাও নাকি তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন আপনাদের চরম বিপর্যয় চলে আসবে; আমরা যদি এসবের প্রমাণ পাই

 

তিনি বলেন, আমি ঘোষণা দিয়ে বলতে চাই, এখানে রক্তপাত চাঁদাবাজি বন্ধের জন্য যা যা করা দরকার আমরা তাই করব এই সম্ভাবনাময়ী এলাকা হিসেবে আমরা যা চিন্তা করেছি সেটা বানিয়ে পৃথিবীতে দেখিয়ে দিব

 

এসময় রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী, রাঙ্গামাটি জেলাপ্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার মীর মোদদাছছের হোসেন, তিন পার্বত্য জেলার উপজেলা পরিষদচেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান-সদস্য, হেডম্যান-কারবারিসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন

 

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনা করা ক্যাম্পসমূহগুলো রাঙামাটির আঠারো মাইল ক্যাম্প (১৮ এপিবিএন), বান্দরবানের রাবার বাগান ক্যাম্প (১৯ এপিবিএন) খাগড়াছড়ির পুরাতন পক্ষীমোড়া ক্যাম্প (২০ এপিবিএন) এছাড়া রাঙ্গামাটি, বান্দরবান খাগড়াছড়ি- এই তিন জেলায় ব্যাটালিয়ন হেড কোয়ার্টার্স এবং রাঙামাটিস্থ পার্বত্য জেলাসমূহের কার্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions