কোন ধর্মই অস্ত্রবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সমর্থন করে না : দীপংকর তালুকদার এমপি

প্রকাশঃ ২৪ নভেম্বর, ২০২০ ০৩:৫২:৫৯ | আপডেটঃ ০২ মার্চ, ২০২১ ০২:২১:৫১
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। রাঙামাটির লংগদু উপজেলার ডানের আঠারকছড়া করল্যাছড়ি এলাকায় আর্যগিরি  বন বিহারে  আজ মঙ্গলবার দুদিন ব্যাপী তৃতীয় দানোত্তম কঠিন চীবর দান সম্পন্ন হয়েছে।

আর্য গিরি  বন বিহার প্রাঙ্গনে ধর্মীয় আলোচনা সভায় তক্ষশীলা বন বিহারের অধ্যক্ষ করুনা বন্ধন মহাস্থবিরের সভাপতিত্বে   প্রধান অতিথি ছিলেন রাঙামাটি আসনের সাংসদ দীপংকর তালুকদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন লংগদু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বারেক সরকার। ধর্ম দেশনা দেন করুনা কূঠিরের অধ্যক্ষ কন্টক মহাস্থবির। অনুষ্ঠানে শত শত পূর্নাথী ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহন করেন। অনুষ্ঠানে বিশাখা প্রবর্তিত ২৪ ঘন্টার মধ্যে তুলা থেকে সূতা ও কাপড় তৈরী করা কঠিন চীবর উপস্থিত ভিক্ষু সংঘের উদ্দেশ্য প্রদান করা হয়। অন্ষ্ঠুান শুরুতে ধর্মীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়।  এছাড়্ওা অনুষ্ঠানে বিশ্ব শান্তি কামনায় বিশেষ প্রার্থনা এবং পরম পূজ্য সাধনানন্দ মহাস্থবিরের(বন ভান্তে) ক্যাসেট থেকে ধর্মদেশনা  ও বিকালে ফানুজ বাতি উড়ানো হয়।

এর আগে সকালের দিকে বুদ্ধপুজা, বুদ্ধমূর্তিদান, সংঘদান, অষ্টপরিষ্কার দান, কঠিন চীবর দান পঞ্চশীল প্রার্থনাসহ নানান ধর্মীয় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
এছাড়া অনুষ্ঠানে প্রথম দিনে গেল সোমবার  গৌতম বুদ্ধের প্রধান সেবিকা মহাপুণ্যবতী বিশাখা কর্তৃক প্রবর্তিত নিয়মে ২৪ ঘন্টার মধ্যে তুলা থেকে সুতা ও সুতা থেকে কঠিন চীবর তৈরী করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এমপি বলেন, মানুষের চলাফেরা করতে গেলে চাহিদা রয়েছে। তবে অস্ত্রবাজী ও সন্ত্রাস করে তা কখনো মানুষের জন্য উপকারে আসে না বরং ক্ষতি করে। কোন ধর্মই সন্ত্রাস, অস্ত্রবাজি সমর্থন করেন না।  তাই অস্ত্রবাজী ও সন্ত্রাস না করে সবাইকে বৌদ্ধ ধর্মের নীতি আদর্শ মেনে সৎ পথে চলার আহ্বান জানান।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে সরকার যে যার ধর্ম পালন করতে দিয়েছে। তারপরও এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যে সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে এবং পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে।


সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions