বাঘাইছড়ির নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

প্রকাশঃ ১০ জুলাই, ২০১৯ ০৭:৩৬:০৬ | আপডেটঃ ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০৫:০৫:০০
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। ভারী বর্ষণে আকস্মিক বন্যায় কবলিত হয়েছে রাঙামাটির বাঘাইছড়ির বিস্তীর্ণ এলাকা। প্লাবিত হয়েছে সদরসহ উপজেলার নিম্নাঞ্চলের বহু বাড়িঘর, ফসলি জমি ও রাস্তাঘাট। প্লাবিত হয়েছে উপজেলা পরিষদ ভবনসহ আশেপাশের নিম্নাঞ্চল। চরম ভোগান্তির মধ্যে দুর্গত লোকজন। দুর্গতদের আশ্রয়ে খোলা হয়েছে ২৩ আশ্রয় কেন্দ্র। উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয়রা এসব তথ্য জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা জানান,  টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে বাঘাইছড়ির মুসলিম ব্লক, করেঙ্গাতলী, বঙ্গলতলী, বারেবিন্দু ঘাট, বাঘাইছড়ি সদর, দুরছড়িসহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে রাস্তাঘাট, সেতু, কালভার্ট, ফসলি জমিসহ অসংখ্য বাড়িঘর তলিয়ে গেছে বন্যার পানিতে। স্থানীয়রা বলছেন, কাচালং নদীর তলদেশ ভরাট হয়ে যাওয়ায় ২০০৭ সাল থেকে প্রত্যেক বছর ভয়াবহ বন্যা দেখা দিচ্ছে। গত বছরওও বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। প্রাণ হারিয়েছেন দুই জন।

সূত্র মতে, কাপ্তাই হ্রদে মিলিয়ে যাওয়া কাচালং নদীর তলদেশ ভরাট হওয়ায় প্রতি বছর বর্ষণে বন্যা কবলিত হচ্ছে বাঘাইছড়ি। কাপ্তাই হ্রদ সৃষ্টির গত ৫৯ বছরে একবারও ড্রেজিং না হওয়ায় পাহাড়ি ঢলে এরই মধ্যে জেগেছে কাচালং নদীর তলদেশ। নাব্যতা হারিয়ে এখন বর্ষণেই আকস্মিক বন্যায় কবলিত হয় বাঘাইছড়ির নিম্নাঞ্চল। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন বাসিন্দারা। ক্ষতি হচ্ছে ব্যাপক। এবারও বন্যায় কবলিত হল বাঘাইছড়ির বিস্তীর্ণ নিম্নাঞ্চল।

বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবিব জিতু বলেন, গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে উজান থেকে কাচাল নদী দিয়ে পাহাড়ি ঢল নামছে। এতে প্লাবিত হয়েছে উপজেলা সদরসহ নিম্নাঞ্চলের বিস্তীর্ণ নিচু এলাকা। পানিতে তলিয়ে গেছে বহু ঘরবাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও রাস্তাঘাট। প্লাতি হয়েছে উপজেলা পরিষদ ভবনও। সদরসহ উপজেলায় ২৩ আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। দুর্গতরা এসব আশ্রয় কেন্দ্রে গিয়ে অবস্থান নিচ্ছেন। তাদের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করা হচ্ছে।

বাঘাইছড়ি পৌরসভার মেয়র জাফর আলী জানান, বন্যা নামতেই বাঘাইছড়ি উপজেলার বিস্তীর্ণ নিম্নাঞ্চল তলিয়েছে। দুর্গত লোকজন চরম ভোগান্তির মধ্যে এখন মানবেতর পরিস্থিতিতে। পৌরসভাসহ উপজেলার বিভিন্ন রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে।

সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions