মঙ্গলবার | ১৯ জানুয়ারী, ২০২১

পার্বত্য মানবিক ফাউন্ডেশনের জুরাছড়ির মারমা পাড়ায় শীতের কাপড় ও খাদ্য সহায়তা বিতরণ

প্রকাশঃ ১৩ জানুয়ারী, ২০২১ ০৯:০৩:৪০ | আপডেটঃ ১৯ জানুয়ারী, ২০২১ ০৫:০৩:২৩  |  ২৬১
সিএইচটি টুডে ডট কম, জুরাছড়ি (রাঙামাটি)। দলহ রাক খ্যাইব হিংরে  উগো কংব রালো আখ্যাই ব্রিফোব্যা অর্থাৎ বাংলায় এতদিন শীতে কাঁপছিলাম-এখন কম্বল পেয়ে শীত পালাবে মারমা ভাষায় বললেন অতশিপর বৃদ্ধা তয়াংক্রা ও অংতোআই মারমা।  আরো অনেকে একই কথা বললেন দুর্গম অসহায় দরিদ্র এলাকা বলে তাদের এই কনকনে শীতে দিনে কোন সরকারী-বেসরকারী সংস্থা এগিয়ে আসেনি। কিন্তু মানবতার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে এসেছে সুদুর বান্দরবানে মানবিক সংস্থা ফ্রাংকো হিল চাইল্ড হোম। এই শীতের দিনে কম্বল পেয়ে ভীষণ খুশি।
গতকাল মঙ্গলবার রাঙামাটির বরকল উপজেলার শুভলং ইউনিয়নের দুর্গম অবহেলিত গ্রাম কৈতুরখিল মারমা পাড়া গ্রামের শীত বস্ত্র হিসেবে কম্বল বিতরণ করতে গেলে গ্রামবাসীরা এসব মনের অভিব্যক্ত করেন।

জানা গেছে, রাঙামাটি জেলার বরকল উপজেলার শুভলং ইউনিয়নে অবস্থিত দুর্গম ও অবহেলিত গ্রাম কৈতুরখিল মারমা পাড়াটি। স্বাধীনতার  পর থেকে এই পাড়াটি সরকারের উন্নয়নের ছোয়া তো দুরের কথা  কোন সরকারী কর্মকর্তার পা পড়েনি এই অবহিলত গ্রামে। এই গ্রামে ৫৪ মারমা পরিবারের বসবাস। তাদের একমাত্র পেশা জুম চাষ ও শ্রমিকে কাজ করা। এই গ্রামে শিক্ষার আলোর মূখ দেখেনি এখনো। গ্রামে মাত্র একজন এইচএসসি ও ২ জনএসএসসি  পাশ রয়েছে। গ্রামে বিদ্যালয় না থাকায় ৬/৭ কিলোমিটার দুর্গম পাহাড়ী পথ পাড়ি দিয়ে পাশ^বর্তী উপজেলা জুরাছড়ি বনযোগীছড়া ইউনিয়নের শুকনাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে পড়তে হয়। সব মিলিয়ে এই কৈতুরখিল মারমা পাড়া গ্রাম উন্নয়নের ছোয়া থেকে বঞ্চিত রয়েছেন।

সম্প্রতি বিভিন্ন মিডিয়ার প্রকাশিত হয় অবহেলিত ও দুর্গম এই কৈতুরখিল মারমা পাড়া গ্রামে কনকনে শীতে কাপছে অসহায় ছিন্নমুল মানুষেরা। এই খবর দেখে মানবতার সহায়তার জন্য এগিয়ে এসেছে সুদুর বান্দরবানে মানবিক সংস্থা ফ্রাংকো হিল চাইল্ড হোম।

পার্বত্য মানবিক ফাউন্ডেশনের সার্বিক সহায়তায় প্রধান অতিথি ও পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত থেকে শীত বস্ত্র হিসেবে কম্বল, শিশুদের জন্য শীতের কাপড় জ্যাকেট ও খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন ফ্রাংকো হিল চাইল্ড হোমের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মংঞো মারমা। এ সময় বনযোগীছড়া ইউপি চেয়ারম্যান সন্তোষ বিকাশ চাকমার সভাপতিত্বে এ সময় পার্বত্য মানবিক ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা সদস্য ক্যাখোয়াই প্রু মারমা, পার্বত্য মানবিক ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি কিকো দেওয়ান, সাধারণ সম্পাদক চিমপু চাকমা, সংগঠনিক সম্পাদক ধর্ম প্রিয় চাকমা, সহ-সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কান্তি চাকমা, সাংস্কৃতিক এবং গবেষনা সম্পাদক লাকী চাকমা, স্থানীয় কার্ব্বারী অংচলা মারমা, সাংবাদিক সত্রং চাকমা প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠান শেষে অতিথিরা শীতবস্ত্র ৫৩ পরিবারের মাঝে ৬৩টি কম্বল ও ৮৫ জন শিশুদের মাঝে শীতের গরম কাপড় হিসেবে জ্যাকেট এবং খাদ্য সামগ্রী চাল, আলু, তৈল, পিয়াজ বিতরণ করেন।

পার্বত্য মানবিক ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি কিকো দেওয়ান বলেন, দেশে এখনো এতোই পিছিয়ে জনগোষ্ঠী পড়া রয়েছে যা মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্জিত-স্ব শরীরে না গেলে বুঝাই মুসকিল। এমন ক্ষুদ্র মারমা জনগোষ্ঠী গ্রাম পিছিয়ে ফেলে রেখে সরকারে মধ্যমায়ে দেশে রূপান্ত করা সম্ভব নয়। সুতরাং এই জনগোষ্ঠীদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করণে সরকারের এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

এ সময় ফ্রাংকো হিল চাইল্ড হোমের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মংঞো মারমা বলেন, সম্প্রতি জুরাছড়ির স্থানীয় সাংবাদিক ফেজবুক একউন্ট থেকে ও বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হয় কনকনে শীতে কাপছে মারমা পাড়া গ্রামের মানুষরা। এসব খবর দেখে মানবিকতা থেকে সামান্য শীতবস্ত্র ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণের জন্য এগিয়ে এসেছি। এই গ্রামটি উপজেলা থেকে দুর্গম হওয়াই সত্যিই অবহেলিত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। তিনি তার নিজের উদ্যোগে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার জন্য প্রতিশ্রুতি দেন।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions