বৃহস্পতিবার | ০২ এপ্রিল, ২০২০

কক্সবাজারে রাখাইন পল্লী উচ্ছেদের প্রতিবাদে রাঙামাটিতে মানববন্ধন

প্রকাশঃ ২০ জানুয়ারী, ২০২০ ০৬:৩২:২৩ | আপডেটঃ ০২ এপ্রিল, ২০২০ ০৯:০৭:৩৬  |  ১৪৭৩
সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। কক্সবাজারে উপকুল সুরক্ষায় সুপার ডাইক নির্মাণের জন্য কক্সবাজার সদর উপজেলার ৬নং চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের বসবাসরত অসহায় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি রাখাইন সম্প্রদায়ের বসত-ঘর, বৌদ্ধ মন্দির ও শ্মশান পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বেআইনীভাবে অধিগ্রহন করে উচ্ছেদ প্রক্রিয়া স্থগিতের দাবীতে রাঙামাটিতে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে রাখাইন সম্প্রদায়।

আজ সকালে রাঙামাটিতে বসবাসরত রাখাইন সম্প্রদায়ের উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

রাখাইন সম্প্রদায়ে উচিংছা রাখাইনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্যে রাখেন,  রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি এ কে এম মকছুদ আহম্মেদ, সাবেক ছাত্র নেতা জিসান বখতেয়ার, বাংলাদেশ রাখাইন স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মংচোয়াং অভি, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি রাঙামাটি জেলার সভাপতি টুকু তালুকদার, বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী ও উইভ এর নির্বাহী পরিচালক নাই উ প্রু মারমা প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার টেকসই উন্নয়ন ও উপকূল সুরক্ষার জন্য ১০০ শত বছরের “ডেলটা প্ল্যান” এর আওতাধীন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার উপকূলীয় এলাকায় “সুপার ডাইক” নির্মাণের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারের এই মহৎ উদ্যোগকে আমরা সম্মানের সাথে স্বাগত জানাই।  কিন্তু পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বেড়িবাঁধ ও সুপার ডাইক নির্মান করা হলে কক্সবাজার জেলার চৌফলদন্ডীতে ৪০০ বছর ধরে বসবাসরত রাখাইন সম্প্রদায়ের ১২০টি পরিবার, ৩টি শ্মশান ও ৩টি বৌদ্ধ বিহার উচ্ছেদ হয়ে যাবে। তাই সরকারের কাছে আমাদের জোর দাবী জানাচ্ছি যে রাখাইন সম্প্রদায়ের যে স্থানে বেড়িবাঁধ ও সুপার ডাইক নির্মান করা হবে, সেখানে নির্মান না করে বিকল্প পরিকল্পনা গ্রহন করা হোক।

মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসকের কাছে স্বারকলিপি প্রদান করা হয়।

রাঙামাটি |  আরও খবর
এইমাত্র পাওয়া
আর্কাইভ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭-২০১৮।    Design & developed by: Ribeng IT Solutions