শিরোনামঃ

পার্বত্য শান্তি চুক্তির বর্ষপূর্তিতে নানা কর্মসুচী

সিএইচটি টুডে ডট কম, রাঙামাটি। কাল ২রা ডিসেম্বর পার্বত্য শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরের ২০ বছর পূর্তি। ১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মন্ত্রীসভার সদস্যদের উপস্থিতিতে সরকারের পক্ষে জাতীয় কমিটির আহবায়ক চীফ হুইপ আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ এবং জনসংহতি সমিতির পক্ষে জে এস এস সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধি প্রিয় লারমা (সন্তু লারমা) পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর করেন।
চুক্তি অনুযায়ী ১৯৯৮ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী খাগড়াছড়ি ষ্টেডিয়ামে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে শান্তিবাহিনীর ৭৩৯ সদস্যের প্রথম দলটি সন্তু লারমার নেতৃত্বে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট অস্ত্রসমর্পন করে।
পরবর্তীতে ১৬ ও ২২ ফেব্রুয়ারী ৪ দফায় শান্তি বাহিনী মোট ১৯৪৭ জন অস্ত্র সমর্পন করে। এছাড়া চুক্তির ফলে ১৯৯৮ ও ১৯৯৯ সনে উপজাতীয় শরনার্থীদের সর্বশেষ দলটি উপেন্দ্র লাল চাকমার নেতৃত্বে মাতৃভূমিতে ফিরে আসে। মোট ৬ দফায় ১২ হাজার ৩শ ২২ পরিবারের ৬৩ হাজার ৬৪ জন শরনার্থী দেশে ফিরে আসে।
চুক্তির শর্ত অনুযায়ী ১৯৯৮ সালের ৬ মে স্থানীয় সরকার পরিষদ আইন সংশোধন ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ আইন সংসদে পাশ হয়। ১৫ জুলাই ১৯৯৮ এক গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয় গঠন করা হয় এবং খাগড়াছড়ির তৎকালীন আওয়ামীলীগের দলীয় সংসদ কল্প রঞ্জন চাকমাকে ১ম পার্বত্য মন্ত্রনালয়ের পূর্নমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়।
১৯৯৮ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সরকার জনসংহতি সমিতির প্রধান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমাকে চেয়ারম্যান করে ২২ সদস্যের পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ গঠন করে। ১৯৯৯ সালের ১২ মে আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা (সন্তু লারমা) দায়িত্বভার গ্রহন করেন এবং আঞ্চলিক পরিষদের কার্যক্রম শুরু হয়।
পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন করা না করা নিয়ে পাহাড়িদের মাঝে যেমন রয়েছে হতাশা,তেমনি পাহাড়ে বসবাসকারী বাঙ্গালীদের মাঝে চুক্তি বাস্তবায়ন নিয়ে রয়েছে প্রবল বিরোধীতা। পাহাড়ে চুক্তি বাস্তবায়ন করা আর না করার দাবীসহ নানা ইস্যুতে বিভিন্ন সময় হরতাল অবরোধ পালন করেছে পার্বত্য চুক্তির পক্ষ বিপক্ষরা।
এর মধ্যে গত বছর চুক্তির অন্যতম ধারা পার্বত্য ভুমি কমিশন আইন সংসদে পাস হয়েছে এবং ভুমি কমিশন কাজ শুরু করেছে। তবে বর্তমান চেয়ারম্যানের মেয়াদ শেষ হলেও গত দুই মাসে কাউকে ভুমি কমিশনের চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয়া হয়নি।
চুক্তির বর্ষপুর্তি উপলক্ষে রাঙামাটিতে আজ সরকারিভাবে জেলা প্রশাসনের উদ্যেগে পালন করা হচ্ছে শান্তি চুক্তির দুই দশক পুর্তি, রাঙামাটি ষ্টেডিয়ামে আজ স্থানীয় ও জাতীয় শিল্পীরা গান পরিবেশন করবেন, এছাড়া সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বিশিষ্ট ব্যাক্তিদের সাথে ভিডিও কনফারেন্স এ যোগ দিবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কাল চুক্তির বর্ষপুর্তির দিন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সকালে র‌্যালী ও আলোচনা সভা করবে পৌরসভা প্রাঙ্গনে অন্যদিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জিমনিসিয়ামে সমাবেশ করবে। সমাবেশ শেষে তারা বিক্ষোভ মিছিল করার ও প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।

Print Friendly, PDF & Email

Share This:

খবরটি 26 বার পঠিত হয়েছে


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

ChtToday DOT COMschliessen
oeffnen